বিভিন্ন প্রকার অংশীদারি কারবার Types of Partnership Business

অংশীদারদের প্রকারভেদ [ Kinds of Partners ]


● সক্রিয় অংশীদার (Active Partner) : যে অংশীদার অংশীদারি কারবারের ব্যবস্থাপনায় সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করে তাকে সক্রিয় অংশীদার বলে। প্রতিষ্ঠানের দৈনন্দিন কাজকর্ম সক্রিয় অংশীদারদের নির্দেশে পরিচালিত হয়। সকল অংশীদার চাইলে সক্রিয় অংশীদার হতে পারে।


● নিষ্ক্রিয় বা ঘুমন্ত অংশীদার (Inactive or Sleeping Partner) :
যে সমস্ত অংশীদার অংশীদারি কারবারে মূলধন সরবরাহ করে এবং লাভক্ষতিতে অংশগ্রহণ করে কিন্তু অংশীদারি কারবারের ব্যবস্থাপনায় অংশগ্রহণ করে না তাকে নিষ্ক্রিয় বা ঘুমন্ত অংশীদার বলে।

 

Partnership Business

 

● সীমিত দায়যুক্ত অংশীদার (Limited Partner) : যে সমস্ত অংশীদারের দায় প্রদত্ত মূলধন বা চুক্তিদ্বারা সীমাবদ্ধ হয় তাকে সীমিত দায়যুক্ত অংশীদার বলে। সীমিত দায় ভোগ করার জন্য কিছু ত্যাগ করে এবং প্রতিষ্ঠানকে নিজের কাজের দ্বারা দায়বদ্ধ করে না।


● নাবালক অংশীদার (Minor Partner) :
কোনো নাবালক অংশীদারি কারবারের অংশীদার হতে পারে না। অংশীদারদের সকলের সম্মতি অনুসারে নাবালককে অন্তর্ভুক্ত করা যেতে পারে। অংশীদারি কারবারের মূল ভিত্তি হল চুক্তি। নাবালকের চুক্তি করার কোনো অধিকার নেই। নাবালক অংশীদার পদমর্যাদা লাভ করতে পারে না। সুবিধাভোগীর পর্যায়ে থাকে। সাবালকত্ব প্রাপ্তির ছয় মাসের মধ্যে জানাতে হবে সে অংশীদার হতে চায় কি না।


● আচরণের দ্বারা অংশীদার ( Partner by Estoppel) : নামমাত্র অংশীদার নিজের আচরণ ও কথাবার্তার দ্বারা নিজেকে অংশীদার হিসেবে প্রতিপন্ন করে এবং নিজ আচরণের জন্য দায়বদ্ধ হয়। কিন্তু প্রতিষ্ঠানকে দায়বদ্ধ করতে পারে না।


● নামমাত্র অংশীদার (Partner by Holding Out) : অংশীদারি কারবারের বাইরে কোনো ব্যক্তি মূলধন সরবরাহ করে কিন্তু লাভলোকসান বা ব্যবস্থাপনায় অংশগ্রহণ করে না। এরুপ দায়বহনকারী ব্যক্তিদের নামমাত্র অংশীদার বলে।


● অংশীদারসম (Quasi Partner) : অবসরপ্রাপ্ত অংশীদার নিজের মূলধন প্রতিষ্ঠান থেকে না নিয়ে ঋণ হিসেবে বিনিয়োগ করে এবং ঋণের ওপর সুদ গ্রহণ করে তাকে অংশীদারসম বলে। প্রকৃতপক্ষে এরা অংশীদারসম ঋণদাতা মাত্র।


বিভিন্ন প্রকার অংশীদারি কারবার (Types of Partnership Business)


অংশীদারি কারবারের অংশীদারদের দায় অপরিমিত। কিন্তু স্থায়ীকরণের ভিত্তিতে তিন ধরনের অংশীদারি কারবার দেখা যায়-


● ঐচ্ছিক অংশীদারি (Partnership at Will) : যে সমস্ত অংশীদারি কারবার অনির্দিষ্টকালের জন্য গঠিত হয় কিন্তু অংশীদারদের ইচ্ছানুসারে বিলুপ্ত হয় তাকে ঐচ্ছিক অংশীদার বলে। এই ধরনের কারবার বিলোপের জন্য উপযুক্ত বিজ্ঞপ্তি প্রয়োজন।


● নির্দিষ্ট অংশীদারি (Particular Partnership) :
নির্দিষ্ট অংশীদারি কারবার নির্দিষ্ট প্রকল্পের জন্য গঠিত হয়. প্রকল্প শেষ হলেই অংশীদারি কারবারের বিলুপ্তি ঘটে বা ঐচ্ছিক অংশীদারিতে রূপান্তরিত হয়।


● নির্দিষ্ট মেয়াদের অংশীদারি (Partnership for a Particular Period of Time) : নির্দিষ্ট মেয়াদের অংশীদারি কারবার নির্দিষ্ট সময়ের জন্য স্থাপিত হয়। নির্দিষ্ট সময় শেষে বিলুপ্ত হয়। পরবর্তী পর্যায়ে ঐচ্ছিক অংশীদারিতে পরিণত হয়। 


Types Of Partnership Business

 

দায়-সীমিত অংশীদারি ( Limited Liability Partnership)


যে অংশীদারি কারবারে কয়েকজন অংশীদারের দায় পরিমিত ও বাকিদের দায় অপরিমিত তাকে দায়-সীমিত অংশীদারি বলে। আমাদের দেশে, দায়সীমিত অংশীদারি নিষিদ্ধ। 1907 খ্রিস্টাব্দে ইংল্যান্ডে সীমিত অংশীদারি আইন পাস হয়।

দায়-সীমিত অংশীদারি কারবারের অংশীদাররা ব্যবস্থাপনায় অংশগ্রহণ করতে পারে না। প্রতিষ্ঠানের অধিকাংশ অংশীদারদের দায়-সীমিত হলে সংখ্যা লঘিষ্ঠ দ্বারা কারবার পরিচালিত হবে। দায়-সীমিত অংশীদারদের কারবার বিলোপের জন্য বিজ্ঞপ্তি দিতে হয় না। মৃত্যু বা দেউলিয়া অংশীদারির অস্তিত্ব ক্ষুণ্ন করে না। নতুন অংশীদার গ্রহণ করতে সম্মতির প্রয়োজন হয় না। প্রদত্ত মূলধন বা অগ্রিম অর্থ প্রতিষ্ঠান থেকে তোলা যায় না।

ভারতে দায় সীমিত অংশীদারি নিষিদ্ধ। ইউরোপ ও আমেরিকায় দায় সীমিত অংশীদারির প্রচলন দেখা যায়। 1907 খ্রিস্টাব্দে ইংল্যান্ডে সসীম অংশীদারি আইন পাস হয়। আমেরিকার কিছু কিছু রাজ্যে এর প্রচলন লক্ষ করা যায়। এক্ষেত্রে কোনো একজন অংশীদার অসীম দায় বহন করবে এবং অন্যান্য অংশীদারদের দায় সীমাবদ্ধ থাকবে।


দায়সীমিত অংশীদারি কারবারের বৈশিষ্ট্য (Features of Limited Partnership)


● দুধরনের অংশীদার (Two Types of Partner) : দায় সীমিত অংশীদারিতে দু-ধরনের অংশীদার থাকে—দায় সীমিত ও সাধারণ অংশীদার। দায় সীমিত অংশীদারদের দায় প্রদত্ত মূলধন দ্বারা সীমিত এবং দ্বিতীয় শ্রেণি অর্থাৎ সাধারণ অংশীদারদের দায় অপরিমিত। অংশীদারদের ঊর্ধ্বসীমা সংখ্যা কুড়ি হলেও অন্তত একজনের দায় অপরিমিত হয়ে থাকে। কিন্তু লাভ-লোকসান বণ্টনের হার চুক্তি অনুসারে নির্ধারিত হয়।


● বাধ্যতাত্বমূলক নিবন্ধন (Compulsory Registration) : অংশীদারি প্রতিষ্ঠানের নিবন্ধন বাধ্যতামূলক নয়। কিন্তু দায় সীমিত অংশীদারি প্রতিষ্ঠানের নিবন্ধন সর্বদা বাধ্যতামূলক। নিবন্ধনের জন্য লিখিত চুক্তির প্রয়োজন আছে। দায় সীমিত অংশীদারি অনিবন্ধিত হলে সাধারণ অংশীদারি হিসেবে গণ্য হয় এবং সমস্ত অংশীদারদের দায় অপরিমিত হয়।


● অংশীদারদের খর্বিত অধিকার (Restrict the Rights of the Partners) : দায় সীমিত অংশীদারগণ কখনও ব্যবস্থাপনায় অংশগ্রহণ করতে পারে না। প্রতিষ্ঠানের অধিকাংশ অংশীদারদের দায় সীমিত হলে সংখ্যালঘিষ্ঠ সদস্য দ্বারা পরিচালক পর্ষদ গঠিত হয়ে থাকে। স্বল্প সংখ্যক ব্যবস্থাপকদের হাতে সমস্ত দায়িত্ব দেওয়া হয় বলে সুষ্ঠু ও কার্যকর ব্যবস্থাপনা চালু করা সম্ভবপর হয়ে থাকে।

 

দায় সীমিত অংশীদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কারবারি সম্পর্কে যুক্ত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান অংশীদারদের দায় সীমাবদ্ধ বা দায় অসীম বিষয়ে তথ্য পেতে পারেন। এই ধরনের তথ্য পরিবেশন না করলে দায় সীমিত অংশীদারগণ আইনত সাধারণ অংশীদার হিসাবে বিবেচিত হন এবং তাদের দায় অপরিমিত হয়।

 

দায় সীমিত অংশীদার অংশীদারি প্রতিষ্ঠান বিলোপের জন্য নোটিশ জারি করতে পারে না। দায় সীমিত অংশীদারদের মৃত্যু বা দেউলিয়া হওয়ায় প্রতিষ্ঠানের অস্তিত্ব ক্ষুণ্ণ হয় না। নতুন অংশীদার গ্রহণের সময় এদের সম্মতি প্রয়োজন হয় না। এরা প্রদত্ত মূলধনের অংশ বা অগ্রিম অর্থ অংশীদারি প্রতিষ্ঠানের থেকে তুলে নিতে পারে না।